• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

রোদে সানগ্লাস ব্যবহার জরুরি কেন? সঙ্গে সতর্কতা

অনলাইন ডেস্ক১০:৫৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২০

আমাদের অনেকেরই ধারণা যে চোখে সানগ্লাস পড়া হয় ফ্যাশন করতে। এ ধারণা মোটেও ঠিক নয়। সানগ্লাস ফ্যাশন না মূলত রোদ থেকে চোখকে নিরাপদ রাখতেই সানগ্লাস ব্যবহার করা জরুরি। চোখকে সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সানগ্লাস ব্যবহার করা হয়।

সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মি চোখের ভেতরের অংশের ক্ষতি করে। এখানেই শেষ নয়। চোখের পাতা, চোখের চারপাশ, ত্বকে জ্বালাভাব, কালি পড়া, ভাঁজ পড়া ইত্যাদি সমস্যা থেকে বাঁচতে সানগ্লাস পরা প্রয়োজন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, সানগ্লাস শুধু পড়লেই হবে না। অবশ্যই ভালো মানের সানগ্লাস পড়তে হবে। ভালো সানগ্লাসের ব্যবহার ও নিয়মিত যত্নে আপনার চোখ নিরাপদ থাকবে।

হারভার্ড মেডিকেল স্কুলের অফথ্যমোলজির অধ্যাপক লুই পাসকোয়ালে বলেন, আমরা যখন ঘরে থাকি তখন সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি চোখের ক্ষতি করে না। তবে বিপত্তি ঘটে তখন যখন দীর্ঘ সময় রোদে বাইরে থাকা হয়। সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি সরাসরি চোখের ক্ষতি করতে পারে। তাই বাইরে বের হলেই ইউভি রশ্মি আটকাতে পারে এমন চশমা পড়তে হবে।

আসুন জেনে নেই রোদে সানগ্লাস ব্যবহার করার উপকারিতা

১. সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মি কর্নিয়া ও চোখের ক্ষতি করে। তাই চোখকে রক্ষা করতে সানগ্লাস ব্যবহার করতে হবে। সানগ্লাস চোখকে রশ্মি থেকে পুরোপুরি রক্ষা করে।

২. দীর্ঘ সময় রোদে থাকলে চোখের পাতা, চোখের চারপাশ, ত্বকে জ্বালাভাব, কালি পড়া, ভাঁজ পড়া সমস্যার দেখা দেয়। তাই সানগ্লাস ব্যবহার জরুরি।

৩. সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মি চোখের ভেতরের অংশের ক্ষতি করে ও চোখে ছানি পড়ে। তাই সানগ্লাস ব্যবহার জরুরি।

৪. চোখে প্রচুর আলো পড়লে ‘আইরিস’ ছোট হওয়া চোখ কুচকে যেতে পারে। এতে চোখের ক্ষতি হয়। ভালো মানের চশমার  ব্যবহার আলোর পরিমাণ ৯৭ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে দিতে পারে।

৫. দীর্ঘ সময় রোদে থাকলে বয়স বাড়ার সঙ্গে চোখের দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়া শঙ্কা বেড়ে যায়। তাই সানগ্লাস ব্যবহার জরুরি।

৬. লোহা, নাইলন, প্লাস্টিক, টাইটেনিয়ামসহ বিভিন্ন উপাদানে চশমা তৈরি করা হয়।এসব উপাদানের রয়েছে নিজস্ব সুবিধা এবং অসুবিধা। তাই নিজের প্রয়োজনীয় অনুযায়ী চশমা কিনুন।

রোদ কিংবা ধুলা-বালির হাত থেকে রক্ষা পাওয়াসহ আমাদের দৈনন্দিন জীবনে সানগ্লাস হলো একটি ফ্যাশন। ফ্যাশন সচেতন মানুষের চাহিদা এবং প্রয়োজনের কথা বিবেচনা করেই বিভিন্ন কোম্পানি তৈরি করে নানা স্টাইলের সানগ্লাস। ছেলে, মেয়ে প্রত্যেকের ক্ষেত্রেই রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন স্টাইল।

সানগ্লাস ওজনে হাল্কা হলে পরতে বেশ আরামদায়ক লাগে। আবার ভারি ফ্রেমের গ্লাস আমেরিকান আর্মি, ক্রিশ্চিয়ান ডিওর জনপ্রিয়। আবার অন্যদিকে এডিডাস, ওকলে, কেলভিন ক্লাইনের সানগ্লাসও পছন্দ ক্রেতাদের। তবে তরুণ-তরুণীদের জন্য পছন্দের নামগুলো হলো- ডলসি অ্যান্ড গাব্বানা, পলিস, প্রাডা, জর্জিও আরমানি ইত্যাদি ব্র্যান্ড।

সব চেহারার সঙ্গে সব ধরণের চশমা মানায় না। তাই চশমা নির্বাচনের ক্ষেত্রে আপনাকে যা যা মনে রাখতে হবে-

১। রং এবং আকৃতি

২। আকার

৩। বড় চেহারার জন্য বড় গ্লাস মানানসই

৪। যাদের চেহারা ছোট তারা চিকন আকৃতি বেছে নিন

৫। যাদের ত্বক গাঢ় তারা কালো, কফি, বাদামি রঙের গ্লাস ব্যবহার করতে পারেন

৬। যাদের গায়ের রঙ উজ্জ্বল তারা বেগুনি, সাদা, গোলাপি, লাল রংয়ের গ্লাস ব্যবহার করতে পারেন

৭। চুলের স্টাইলের ওপর গ্লাস ব্যবহার করুন

৮। মেয়েরা রোদ চশমার সঙ্গে কপালে ফোঁটা লাগাতে পারেন

৯। ঘরে প্রবেশের আগে অবশ্যই খুলে রাখুন

১০। ভালো ব্র্যান্ডের সানগ্লাস ব্যবহার করুন

চোখের সুরক্ষায় রাস্তার ধুলাবালি, পোকা-মাকড় ও সূর্যের ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মি থেকে চোখকে বাঁচায় এই সানগ্লাস। আমাদের দেশে বাইসাইকেল বা মোটরসাইকেল আরোহী তরুণদের জন্য সানগ্লাস অত্যন্ত জরুরি। কারণ বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেল চলন্ত অবস্থায় বাতাসের ধুলাবালি এবং পোকা-মাকড় আমাদের চোখে এসে পড়তে পারে। আর এসব ধুলাবালি ও পোকা-মাকড় থেকে রক্ষা করে সানগ্লাস। সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি আমাদের চোখের কর্নিয়ার ও রেটিনার দারুণ ক্ষতি করে। সানগ্লাস এই অতি বেগুনি রশ্মিকে শুধু আমাদের চোখ আসতে বাধা প্রদানই করে না বরং তা প্রতিহত করে। তাই সানগ্লাস শুধু ফ্যাশনে নয়, চোখের সুরক্ষায় অতিপ্রয়োজনীয়।

লাইভ

rss goolge-plus twitter facebook
Design & Developed By:

প্রকাশক : গোলাম মাওলা শান্ত
মোবাইলঃ ০১৭১৪৭৮৫০১৭, ০১৭১১৫৭৪৪১৫
অফিসঃ ৩৮৩/২/এ, বনশ্রী রোড, পশ্চিম রামপুরা, রামপুরা, ঢাকা-১২১৭

ই-মেইল: jugerbarta.news@gmail.com,

সম্পাদক:  এ্যাড. কাওসার হোসাইন
নির্বাহী সম্পাদক: খান মাইনউদ্দিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: তানজিল হাসান খান
বার্তা সম্পাদক: এইচ.এম বশির

টপ